রায়পুর বধ্যভূমিতে আগামী বছরেই স্মৃতিস্তম্ভ করা হবে: মোহাম্মদ আলী

0 152

।। নিজস্ব প্রতিনিধি।।
কুমিল্লার দাউদকান্দির রায়পুর বব্যভূমিতে আগামী বছরেই স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ করা হবে বলে জানিয়েছেন দাউদকান্দি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মেজর মোহাম্মদ আলী (অব.)।  শনিবার ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯,  সন্ধ্যায় শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে দাউদকান্দির রায়পুর ব্রিজ সংলগ্ন বধ্যভূমিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করার পর তিনি এ কথা জানান। তিনি বলেন, একাত্তরে নৃশংস গণহত্যার সাক্ষী এই বধ্যভূমিকে যথাযথ সংরক্ষণ করে চলতি বিজয়ের মাসেই স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণের কার্যক্রম শুরু করা হবে। পাশাপাশি শহীদদের নামফলক ও গণহত্যার ঘটনাও লেখা থাকবে নামফলকে।

বধ্যভূমিতে শ্রদ্ধা নিবেন করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মেজর মোহাম্মদ আলী (অব.), উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. কামরুল হাসান খান, দাউদকান্দি মডেল থানা  ইনচার্জ মো. রফিকুল ইসলাম, দাউদকান্দি মু্ক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার খোরশেদ আলমসহ অন্যান্য মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধ গবেষক বাশার খান, সাংবাদিক ওমর ফারক মিয়াজী, আলমগীর হোসেন ও জাকির হাজারী, স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা ও শহীদের স্বজন অমূল্য বণিসকসহ অন্যান্যরা।

এসময়, মোমবাতি প্রজ্জ্বলন, শহীদদের স্মরণে নিরবতা পালন এবং গণহত্যার ঘটনার নিয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনাও করা হয়।

উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের ২৩ মে রায়পুর গ্রামে হিন্দু সম্প্রদায়ের ৯ জন নারী-পুরুষকে রায়পুর খালপাড়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী। এই গণহত্যায় সহযোগিতা করে স্থানীয় রাজাকার ও হানাদার বাহিনীর এদেশীর দোসররা।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.