‘মোশতাকের প্রেতাত্মা’ মনির তালুকদারের নৌকার সঙ্গে বেঈমানির ভিডিও প্রকাশ

860

।। নিজস্ব প্রতিনিধি।।

দাউদকান্দির বারপাড়া ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান- বিএনপির এক সময়ের দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী ও মধ্যযুগীয় কায়দায় গৃহবধূকে নির্যাতনে অভিযুক্ত মনির তালুকদার  গত ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের আগের ও নির্বাচনের দিন দেখিয়েছে তার আসলরূপ। সবশেষ প্রকাশ হলো – নৌকার টিকিটে চেয়ারম্যান হয়ে নৌকার সঙ্গে বেঈমানির ভিডিও। এতে দেখা যায়, মনির আওয়ামী লীগের নানা বদনাম ছড়িয়ে ধানের শীষে ভোট চাচ্ছে। সকাল ৬টার মধ্যে কেন্দ্র দখলের নির্দেশ দিচ্ছে বিএনপি-জামায়াতের ক্যাডারদের।

এই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর দাউদকান্দির প্রকৃত নৌকাপ্রেমী ও আদর্শিক আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা বলছেন, ‘মনির তালুকদার হলো নব্য খুনি মোশতাক এবং খুনি মোশতাকের প্রেতাত্মা। খন্দকার মোশতাক আহমেদ যেমন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কাছ থেকে যাবতীয় সুযোগ-সুবিধা নিয়েছে। দলে চরম অজনপ্রিয় হওয়ার পরও বঙ্গবন্ধু তাকে মন্ত্রী বানিয়েছেন। কিন্তু সেই মোশতাকই ৭৫’র ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়; ঠিক তেমনি মনির তালুকদার মাত্র এক বছর আগে নৌকার টিকিটে চেয়ারম্যান হয়ে, কুমিল্লা- ১ আসনের এমপি মেজর জেনারেল (অব.) সুবিদ আলী ভূঁইয়ার কাছ থেকে নানা সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করে। এরপর সুবিদ আলী ভূঁইয়ার সঙ্গে বেঈমানী করে যোগদেন ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুরের সঙ্গে। ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের দিন নৌকার বুকেই কুড়াল মেরে পুরো বারপাড়া ইউনিয়নে ধানের শীষকে বিজয়ী করে।

এর আগে, একাদশ সংসদ নির্বাচনের মাত্র একদিন আগে মনির গত ২৯ ডিসেম্বর ২০১৮, শনিবার বারপাড়া ইউনিয়নের চারপাড়া বাজারে ধানের শীষে ভোট দিতে লোকজনকে হুমকি-ধামকি দেয়।

মনিরের বেঈমানি ও হুমকি-ধামকির প্রভাবে বারপাড়া ইউনিয়নে নৌকা ও ধানের শীষের ভোটের হিসাব-নিকাশ:

 কেন্দ্রের নাম নৌকার প্রাপ্ত ভোট ধানের শীষের প্রাপ্ত ভোট
রাঙ্গাশিমুলিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয় ৬০ ভোট ২১০২ ভোট
সুখীপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় ১৬৮ ভোট ১৪১৪ ভোট
ইছাপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় ২৬৭ ভোট ৯৩৭ ভোট
বারপাড়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ৩৪৭ ভোট ১৮৭১ভোট
বারপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় ১২২ ভোট ৯৭৬ ভোট
তিনচিটা প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩১৮ ভোট ১০৭৮ ভোট

অতচ, এই মনির গত বছর বিপুল অর্থ ও বিভিন্ন লোককে কাজে লাগিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার টিকিট নিয়ে মাত্র ১২ ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়।

এরপরই শুরু তার অপকর্ম ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড। কয়েক মাস আগে স্থানীয় চারপাড়া গ্রামে এক গৃহবধূকে মধ্যযুগীয় কায়দার নির্যাতন করে। এ ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় কঠোর পদক্ষেপের নির্দেশ দেয়। এরপর মনির তার গোষ্ঠীসহ এলাকা ছাড়া হয়।

ছবি : চারিপাড়া  গ্রামে এক গৃহবধূকে মনিরের নির্দেশ ও উপস্থিতিতে এক গৃহবধূকে মধ্যযুগীয় কায়দার প্রকাশ্যে নির‌্যাতন করা হচ্ছে।

 কয়েকদিন  আগে এলাকায় ফিরে এসে সবশেষ বিএনপির পক্ষে অবস্থান নেয় মনির। এলাকাবাসী জানায়, বিপুল অর্থের বিনিময়ে বিক্রি হয়ে মনির এলাকার লোকজনকে ধানের শীষে ভোট দিতে ভয়-ভীতি দেখায় ও বাধ্য করে।

নব্য মোশতাক মনির তালুকদারের বেঈমানির ভিডিও-

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়, কিন্তু ট্র্যাকব্যাক এবং পিংব্যাক খোলা.