দাউদকান্দিতে নির্বাচনে হামলাকারী ও অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার না করা নিয়ে উত্তপ্ত আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা

37

।। নিজস্ব প্রতিনিধি।।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে আওয়ামী লীগ টানা তৃতীয়বার সরকার গঠনের পর কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলায়  আইন-শৃঙ্খলা কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার দুপুরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়াতনে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন কুমিল্লা -১ (দাউদকান্দি-মেঘনা) আসনের টানা তৃতীয়বারের সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অব.) সুবিদ আলী ভুঁইয়া। সভায় অন্যান্য বিষয় নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠে গত ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসীদের সশস্ত্র হামলা ও অবৈধ অস্ত্র ব্যবহারের বিষয়টি।

জাতীয় নির্বাচনের দিন দাউদকান্দি পৌরসভার একটি ভোটকেন্দ্রে সশস্ত্র হামলা করা হয় সংসদ সদস্য সুবিদ আলী ভূঁইয়ার উপর। সভায় অংশ নেওয়া একটি সূত্র জানায়,  সাংসদ সুবিদ আলী ভূঁইয়া তার ওপর হামলার ঘটনায় কেউ গ্রেপ্তার না হওয়ার বিষয়ে দাউদকান্দি থানাও ওসির কাছে জানতে চাইলে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কোনো সদুত্তর দিতে পারেন নি।

এরপর উপজেলা চেয়ারম্যান  মেজর মোহাম্মদ আলী (অব.) জানতে চান, সন্ত্রাসী আসলাম কর্তৃক তাকে হত্যার পরিকল্পনার অডিও ফাঁস নিয়ে থানায় অভিযোগ করা হয়েছিল। কিন্তু এখনো কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। এ বিষয়েও কোনো সদুত্তর দিতে পারেন নি দাউদকান্দি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান

সূত্র আরও জানায়, এরপর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জেবুন্নেসা জেবু জানতে চান, নির্বাচনের দিন একজন মহিলা নেত্রীকে পিটিয়ে আহত করা হয়। অসংখ্য নেতাকর্মীকে গুলি ও চাপাতির কুপে আহত করা হয়। কিন্তু এ ঘটনায়ও কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। জেবুন্নেসার বক্তব্যেও কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান।

সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন দাউদকান্দি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মেজর মোহাম্মদ আলী (অব.)। সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মাহবুব আলম।

সভায় বাল্যবিবাহ নিরোধ সংক্রান্ত ইউনিয়ন কমিটি সভা নিয়মিত অনুষ্ঠান, শিশু নির্যাতন বন্ধে সতর্ক থাকা, চুরি-ডাকাতি বন্ধে পুলিশের নজরদারি বৃদ্ধি, প্রতি জুমার নামাজের খুৎবার পূর্বে ইমাম কর্তৃক বাল্যবিবাহ ও শিশু নির্যাতন বন্ধে বক্তব্য, উপজেলার প্রত্যেক মাদ্রাসায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও ছাত্র-ছাত্রী সমাবেশের ব্যবস্থাকরণ, জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ নিরোধে সতর্ক দৃষ্টিসহ অন্যান্য বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়, কিন্তু ট্র্যাকব্যাক এবং পিংব্যাক খোলা.